Blog

পিসিইউটির বিল্ড কোয়ালিটি খুবই সলিড! এর মধ্যে এমন অনেক কিছুই রয়েছে যা খুব বেশি হাইলাইটেড তার মধ্যে যে সবচেয়ে বেশি সেটা হল 80+ ব্রঞ্জ এফিসিয়েন্সি! 80+ ব্রঞ্জ বলতে বোঝায় একটি এফিসিয়েন্সি লেভেল! 80+ ব্রঞ্জ হয় 80+ গোল্ড হয় 80+ প্ল্যাটিনাম হয় এছাড়াও ভিন্ন ভিন্ন লেবেল হয়ে থাকে! এখানে ব্রঞ্জ হচ্ছে একটি সারটিফাইড লেভেল। অর্থাৎ আপনি যদি এটা লোড করে ইউজ করে তাহলে ম্যাক্সিমাম এফিসেন্সি পাবেন 86% এর মানে আপনি যদি এটা ব্যাবহার করেন আপনার পিসিতে এবং পিসি অনেক সময় ধরে ইউজ করেন তাহলে হতে পারে ইলেক্ট্রিসিটির কস্টের ক্ষেত্রে আপনার কিছুটা সেভিংস হতে পারে। শুধু তাই নয়, এফিসেন্সি যখন বেশি তখন হিট এর যে জেনারেশন অর্থাৎ যে হিট জেনারেট হয় তা খুব কম হয়। যার ফলে সিস্টেমের টেম্প্রেচার বিশেষ করে পিএসইউ এর টেম্প্রেচার লো থাকে। যদিও এক্ষেত্রে প্রসেসর এর হিট তেমন প্রভাব পরেনা। তবে ওভারঅল টেম্প্রেচার খুব লো থাকে। ২য় হাইলাটেড ফিচারটি হল এর সাইলেন্ট ফ্যান। অর্থাৎ আপনি যখন পিসি আইডল…

Read more

যদি আপনি আপনার জন্য এমন কোন সিস্টাম বিল্ড করতে চান যেখানে আপনি core i7 9700k বা i9 এর মত প্রসেসর ইউজ করবেন তাহলে ডেফেনেটলি এই মাদারবোর্ডটি আপনার জন্য অনেক ভাল একটি অপশন! ব্যাক্তিগত ভাবে আমি এই মাদারবোর্ডটি নিজের জন্য কিনেছি এবং ইউজও করছি এবং আমি খুবই মুগ্ধ তাই ভাবলাম কেননা আপনাদেরকেও এই মাদারবোর্ড টি সম্পর্কে কিছু তথ্য দেওয়া যাক!! Z390 অরাস মাস্টার কারেন্টলি অরাসের বেস্ট মাদারবোর্ড যা আপনি আজকের ডেটে ক্রয় করতে পারবেন। আর যেহেতু z390 তাই বুঝতেই পারছেন এটা আউট অব দা বক্স 9th জেনারেশনকেও সাপোর্ট করে। তবে আপনি যদি z370 ও ক্রয় করেন তাহলে সেতাও আউট অব দা বক্স 9th gen কে সাপোর্ট করবে। কিন্তু অরাস মাস্টার z390 এর মজাই ব্যাপারটাই আলাদা। যে কারনে আপনি এটা আমার সিস্টেমের জন্য ক্রয় করেছি। এটা ইউজ করছি প্রায় দুই মাস হয়েছে। তাই ভাবলাম কেননা এই এক্সপেরিয়েন্সটি আপনাদের সাথে শেয়ার করা যায়! ডেফেনেটলি এর সাইজ একটু বড়! সকেট এর কথায় যদি যাই…

Read more

এটি একটি ২৭ ইঞ্চির ফুল এইচডি কার্ভ মনিটর যার রিফ্রেশ রেট হচ্ছে ১৬৫ গিগাহারটজ। বক্সটি ওপেন করলেই পাবেন এর ইন্সটলেশন গাইড, সেট আপ গাইড ইত্যাদি ইত্যাদি। ভেতরে একটি বিপি ১.২ ক্যাবল থাকবে একটি এইচডি এম আই ক্যাবল এবং একটি ইউএসবি ক্যাবল এছাড়াও পাবেন এর ভিসা মাউন্ট বেজ। এর মধ্যেও খুব সুন্দর ভাবে স্ক্র সেট করা হয়েছে যার মাধ্যমে আপনি খুব সুন্দরভাবে নিজ হাতেই মাউন্ট করতে পারবেন এবং আপনি এর হাইট অ্যাডজাস্ট করতে পারবেন ১৩০ মিলিমিটার পর্যন্ত। এক হাতেই টিল্ট করা যাবে যা আমার কাছে সবচেয়ে সুন্দর ফিচার মনে হয়েছে এবং ২০ ডিগ্রি পর্যন্ত লেফট রাইট এ মভ করতে পারবেন। যদি এইচডি আর এনাবল করতে চান তাহলে ডেফেনেটলি উইন্ডোস সেটিংস এ গিয়ে এনাবল করতে হবে। ভেতরে ANC (active noise cancellation) ও রয়েছে। পেছনের দিকে আরজিবি লাইট দেওয়া হয়েছেত ঠিকই কিন্তু অরাসের লোগোতে দেওয়া হয়নি লাইট গুলো আরজিবি ফিউশনের মাধ্যমে সিঙ্ক্রোনাইজও করতে পারবেন। মনিটর টি AMD radeon FreeSync2 HDR সাপোর্টেড, জি সিঙ্ক…

Read more

এটি রাইজেন এর নতুন ৩০০০ সিরিজের প্রসেসর কে সাপোর্ট করবে। আপনারা জানেন আমরা অতীতে ইনটেলের B150, B250 এবং B360 ইত্যাদি মাদারবোর্ড দেখেছি যাদের ওপর অভারক্লকিং সম্ভব না কিন্তু B450 এর ওপর অভারক্লকিং সম্ভব। বলে রাখা ভাল, আপনি যদি একটু বেশিই ভয়ানক অভারক্লকিং করতে চান তাহলে আমি আপনাদেরকে রেকম্যান্ড করব x470 সিরিজের দিকে যেতে কারন এগুলো তৈরিই করা হয়েছে এসব কারনে। দ্বিতীয়ত হচ্ছে আপনি চাইলে এই B450 এর ওপর ক্রস ফায়ার করতে পারবেন অর্থাৎ AMD এর দুটি কার্ড লাগাতে পারবেন কিন্তু NVIDIA’র দুটি কার্ড লাগাতে পারবেন না আর দুটি কার্ড লাগায়ই বা কে? একটি কার্ডেই চলে যায়। এখন এটা B350 থেকে B450 হয়েছে তাহলে নিশ্চয়ই এতে বিশেষ কিছু আছে ! যেমন প্রোসেসিং বুস্ট এর যে নতুন ফিচারট রয়েছে তা এর মদ্ধে রয়েছে। নতুন জেনারেশনের যে XFR রয়েছে সেটিও B450 তে পেয়ে যাবেন এবং এর আগের সিরিজের থেকে এটি কম পাওয়ার নেয়। এর চিপসেট টাই অনেক পাওয়ার এফিসিয়েন্ট পিসি ইউজ করছেন বা…

Read more

আপনি যদি আমার পোস্ট এর নিয়মিত পাঠক হয়ে থাকেন তাহলে হয়ত অবশ্যই জানেন যে GeForce 1660 SUPER কে নিয়ে মাত্র কিছুদিন আগেই কথা বলেছিলাম। আর এখন 1650 SUPER ও এসে পরেছে। তো আপনি যদি এমন একজন ব্যাক্তি হয়ে থাকেন যে পেছনের কিছু দিনের মধ্যে 1650 কিনেছিলেন তাহলে আপনার জন্য অনেক অনেক সিপ্যাথি আমার পক্ষ থেকে! তো 1650 super হচ্ছে তাদের এই লাইন আপ এর লেটেস্ট আপডেট এবং এটা বেশ ভালোই পারফমেন্স দিচ্ছে 1080p গেমিং এর জন্য এবং যতজন ব্যাক্তি পেছনের কিছু দিনের মধ্যে 1650 কিনেছিলেন তাদের সাথে তো অবশ্যই খুব বড় ধোকা হয়েছে! তো আপনি যদি একজন 1650 ইউজার হয়ে থাকেন তাহলে আমি আপনাকে রেকমেন্ড করব এই পোস্ট টা আর না পড়ার জন্য আমি চাই না আপনি আর কষ্ট পান!! বুঝতেই পারছেন অবশ্যই! এবং শেষ পর্যন্ত তারাই পোড়তে থাকুন যারা জানতে ইচ্ছুক 1650 super আসলে কেমন পারফমেন্স দেয়, গেমস এ কেমন চলে এবং এই কার্ড টা ক্রয় করা ঠিক হবে…

Read more

মাউসটি তে আরজিবি ফিউশন ২.০ দেওয়া হয়েছে এবং এর অপটিক্যাল সেন্সর ৬,৪০০ । মাউসটির ফিগার টি বেশ সুন্দর। কালার ব্ল্যাক এবং প্রিমিয়াম একটি লুক দেওয়া হয়েছে। ফিচারসঃ রিয়েল 6400 ডিপিআই অপটিক্যাল ইঞ্জিন 20 মিলিয়ন ক্লিক ওমরন স্যুইচ আরজিবি ফিউশন -16. 8 এম কাস্টমাইজ লাইটিং অন-দি-ফ্লাই ডিপিআই অ্যাডজাস্টমেন্ট অ্যান্টি-স্লিপ রাবারের গ্রিপস তাহলে চলুন দেখে নেওয়া যাক এর কিছু স্পেসিফিকেশনঃ • এর ইন্টারফেইস ইউএসবি, • সেন্সিটিভিটি ৫০~৬,৪০০ ডিপিআই সাথে বাড়তি ৫০ডিপিআই রয়েছে। • এর ফ্রেম রেট ১২,৫০০ ফ্রেমস পার সেকেন্ড • স্ট্যান্ডার্ড থ্রীডি স্ক্রোলিং দেওয়া হয়েছে • এর সর্বাধিক গতি 50g • সর্বাধিক ট্রাকিং স্পিড ২০০ ইঞ্চি প্রতি সেকেন্ড • অবশ্যই ডিপিআই সুইচ রয়েছে • লেফট রাইট সুইচ গুলোর লাইফ ২০ মিলিয়ন টাইমস • ওয়েট ১০০ গ্রাম (+-৫%) তার বাদে • সাপোর্ট OS উইন্ডোস (7/8/10)

NVIDIA তাহলে লঞ্চ করেই ফেলেছে তাদের আরও একটি নতুন গ্রাফিক্স কার্ড সিক্সটিন সিরিজের মধ্যেই যার নাম দেওয়া হয়েছে “জিটিএক্স সিক্সটিন সিক্সটি সুপার” (GTX 1660 Super) । এখন অনেকেই মন্তব্য করছেন, যেহেতু এনভিডিয়ার কাছে তাদের জিটিএক্স 1660 আছে এবং 1660 TI রয়েছে তাহলে কেন 1660 Super লঞ্চ করলেন? অর্থাৎ এর কোন মানেই হয় না আরেকটি নতুন জিপিইউ লঞ্চ করার। এবং প্রতিবারের মত এবারও গিগাবাইট এর পক্ষ থেকে রিভিইউ এর জন্য জিটিএক্স সুপার এসেছে। তাহলে আসুন দেখে নেওয়া যাক পূর্বের যে জিটিএক্স সিরিজ গুল ছিল সেগুলোর তুলনায় এই নতুন জিপিইউ তে NVIDIA কি কি নতুন এবং মেইজর ফিচারস অ্যাড করেছে এবং সেই সাথে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয় টি দেখব তা হল এর প্রাইসিং, তাহলে চলুন দেখে নেওয়া যাক- তাহলে বন্ধুরা প্রথমেই আমরা যদি বক্সের প্রসঙ্গে আসি তাহলে ফ্রন্টেই গিগাবাইটের একটি লোগো এবং 1660 super মডেল টি দেখতে পাব। তারপর যদি আমরা ব্যাকসাইড এর প্রসঙ্গে আসি তাহলে আমরা আরও কিছু ফিচারস দেখতে পাব।…

Read more

মাদারবোর্ড টি দেখতে বেশ প্রিমিয়াম এবং এতে AMD এর 2nd gen মাদারবোর্ড সাপোর্ট করে এবং এতে র‍্যামের জন্য ৪টি স্লট দেওয়া হয়েছে এবং এতে দুটি PCIe এক্সপ্রেস স্লট ও পাবেন। মাদারবোর্ড এর পেছনে রয়েছে ৪টি ইউএসবি 2.0 পোর্ট এবং ৪ট ইউএসবি ৩.০ পোর্ট সেই সাথে মাইক ইন মাইক আউট একটি ডিভিডি একটি এইচডিএমআই পোর্ট ও দেখতে পাবেন! মাউস এবং কিবোর্ড কানেক্টর ও দেখতে পাবেন। খুবই ভাল এবং নরমাল বাজেটে মাদারবোর্ড টি লঞ্চ করা হয়েছে গিগাবাইট এর তরফ থেকে যেটা তারা আলট্রা ডিউরেবল তারা বলছেন। এই মাদারবোর্ড টি আপনি অভারক্লকিং করতে পারবেন যদি আপনি করতে চান। এই মাদারবোর্ড এর বিশেষ দিক টি হল যেকোন gpu ই হোক এটা সাপোর্ট করবে। মেইন হাইলাইটেড ফিচার হল কোন বাইওস আপডেট করার প্রয়োজন নেই যদি এটি আপনি ক্রয় করেন এবং 2nd gen রাইজেন প্রসেসর ক্রয় করেন! এবং এই মাদারবোর্ড আপনি ৬,৫০০ মধ্যে পেয়ে যাবেন। তো বেশ ভালই একটি মাদারবোর্ড এটি! তাহলে এখন কাদের এই মাদারবোর্ড…

Read more

এই মাদারবোর্ড টি AMD A320 চিপসেট এর উপর বেসড! যা আমাদের রাইজেন সিরিজ অ্যাথনল এবং সে সাথে 7th gen A সিরিজের প্রসেসর গুলতে ইউজ করা যাবে। সেই সাথে এই যে প্রাইস তা শুধু মাত্র ৪ হাজার টাকা এবং মাত্র এই ৪ হাজারেই এই মাদারবোর্ড খুব ভাল ফিচার প্রভাইড করে থাকে। এতে NVMe PCIe Gen3 x4 22110 M.2 connector এর জন্য স্লট দেওয়া হয়েছে এসএসডি এর জন্য এবং 5 টেপ্রেচার সেন্সর দেওয়া হয়েছে যা আমাদের পিসির টেম্প্রেচার এর খেয়াল রাখে। যদি প্রসেসর এর কথাই বলা যায় তাহলে বলব এতে রাইজেন এর 1st এবং 2nd gen এবং সেই সাথে অ্যাথনল ও 7th gen এর a series এর প্রসেসর ইউজ করা যাবে। এতে বেশ ভাল কিছু পোর্ট দেওয়া হয়েছে যেমন ps/2 এর দুটি, তিনটি ডিস্প্লে পোর্ট যথা- vga, dvi & hdmi চারটি ইউএসবি 3.1 3rd gen দুটি ইউএসবি 2.0 পোর্ট দেওয়া হয়েছে এবং তিনটি অডিও পোর্ট এবং একটি ইথারনেট দেওয়া হয়েছে যদিও এগুলো…

Read more

খুবই সাধারন এবং ক্লিন লুক মাউসটির যদিও এধরনের মাউস আমি এর আগে কখনো ইউজ করিনি। এটা বেশ অল্প স্বল্প অর্থাৎ বেশ টাইনি বলতে গেলে এবং বেশ ফ্ল্যাসি। এম 3 এবং এম 5 এর তুলনায় এম 2 বেশ চ্যাপটা বলা চলে যাদের হাত বড় তাদের জন্য এম 2 একটু অসুবিধাজনক হতে পারে কারন এম 3 এবং এম 5 থেকে এম 2 অবশ্যই ছোট তবে অন্যদের জন্য এটা বেশ স্ট্যান্ডার্ড। এম 2 এর বাটনে কারভেচার বা বক্রতা নেই যেমনটা এম 5 এ রয়েছে তাই এটা এম ৫ এর মত কমফোর্টেবল নয় তবে এটি অবশ্যই ঠিক আছে বলে মনে হচ্ছে। মাউস টি খুবই পাতলা এবং উপরের দিকটা অনেকটাই নিচু সে ক্ষেত্রে এম 5 এর হাম্প বেশ বড়। এখন না হয় তার এর প্রসঙ্গে যাওয়া যাক- এটাও সেইম টাইপ অব ওয়্যার যেমনটা ঠিক এম 3 এবং এম 5 এর। তার টি বেশ টাফ এবং হার্ড ম্যাটারিয়াল দিয়ে তৈরি যার কারনে ইনফ্ল্যাক্সেবল ক্যাবল গুলো কখনো…

Read more

20/29