Category Archives: Gigabyte

এএমডি প্ল্যটফরম এর বি৪৫০ চিপসেট এর গিগাবাইট আওরাস এর বি৪৫০ আওরাস প্রো ওয়াইফাই গেমিং মাদারবোর্ডটি খুবই আকর্ষণীয়। গিগাবাইট এএম 4 মাদারবোর্ডগুলি সর্বশেষতম এএমডি রাইজেন ৩০০০ প্রসেসরের সমর্থন করতে প্রস্তুত এবং এএমডি রাইজেন ২০০০ এবং ১০০০ প্রসেসরের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। গিগাবাইট ৪০০-সিরিজ আপনার পিসির সম্ভাব্যতা এএমডি “স্টোরএমআই” প্রযুক্তি দিয়ে সর্বাধিক করে তোলে। “স্টোরএমআই বুটের” সময় হ্রাস করতে এবং সামগ্রিক ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতা বাড়ানোর জন্য স্টোরেজ ডিভাইসগুলিকে ত্বরান্বিত করে। সহজেই ব্যবহারযোগ্য এই ইউটিলিটি এসএসডিগুলির গতি একক ড্রাইভের মধ্যে এইচডিডি এর উচ্চ ক্ষমতা সহ একত্রিত করে, এসএসডিগুলির সাথে মিলে ডিভাইসের রিড / রাইট এর গতি বাড়ায়। এই মাদারবোর্ডের সবচেয়ে পাওয়ার-গ্রহণ এবং শক্তি-সংবেদনশীল উপাদানগুলির বিকাশের পাশাপাশি উন্নত সিস্টেমের কার্য সম্পাদন এবং চূড়ান্ত বিতরণে অবিশ্বাস্য নির্ভুলতা সরবরাহ করে । এনভিএম পিসিআই জেন 3 এক্স 4, এক্স 2 এসএসডি সহ চরম পারফরম্যান্স দিতে সক্ষম। মাদারবোর্ডটি ইন্টেল থেকে অন বোর্ড ৮০২.১১ এ.সি ডাবলিউ ওয়াইফাই মডিউলটি ডুয়াল ব্যান্ড এবং ৪৩৩ এমবিপিএস পর্যন্ত গতি সমর্থন করে, ৩x২ দ্রুত ওয়াইফাই গতি ৮০২.১১…

Read more

গিগাবাইট এর আওরাস বাজারে নিয়ে আসলো আরো পাওয়ার ফুল মেমোরি কিট যার মেমোরি ফ্রিকুএন্সি হচ্ছে ডি ডি আর ৪ যা এক্স এম পি প্রফাইল অন করে ৩৬০০ মেগাহার্টজ এ আপনার কম্পিউটারকে দ্রুততার সাথে রান করতে সক্ষম। আওরাস আরজিবি মেমোরি কিটটি দশ-স্তরে তৈরি করা হয়েছে, অত্যাধুনিক পিসিবি এর দারা, যা মেমরি আইসিগুলির স্থিতিশীলতা এবং উচ্চ কার্যকারিতা নিশ্চিত করে। মেমোরি কিটের হিটসিংকটি সেরা পারফরম্যান্সের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। উচ্চ মানের উপকরণ মেমরি কিটের স্থায়িত্বের গ্যারান্টি সহ আরও ভাল তাপ হ্রাস করে। আওরাস আরজিবি মেমরি ১২ টি আলোকিত মোড সমর্থন করে। এর মদ্ধে ৫ টি হল কেবল আলোক মোড। নির্বাচিত গিগাবাইট আওরাস মাদারবোর্ডস এর মাধ্যমে, ব্যবহারকারীরা সহজেই বায়োসে “আওরাস মেমরি বুস্ট” সক্ষম করে রিড এবং রাইটিং পারফরম্যান্স ৪% পর্যন্ত আপগ্রেড করতে পারবেন।

এটা গিগাবাইটের গেমিং ওসি সিক্স জি জিপিইউ। ভেতরে ট্রিপল এক্স উইন্ডফোরস ডিজাইনের ফ্যান রয়েছে। এর মানে মাঝখানের যে ফ্যানটি রয়েছে এর স্পিন অল্টারনেট। বক্সের মধ্যে কি দেওয়া হবে টা আমরা সকলেই জানি তবে একটা জিনিসের ব্যাপারে না বললেই নয়! সেটা হচ্ছে অপ্টিক্যাল ড্রাইভ! এখন ২০১৯ কিন্তু এখনো তারা সিডি দিচ্ছে আমার মনে হয় না এ যুগে কেও সিডি ইউজ করে। অন্ততপক্ষে এখনতো তাদের পেনড্রাইভ দেওয়া উচিত! জিপিইউ টা অনেক হ্যাভি এর মধ্যে ৮ পিন দেওয়া হয়েছে । এই জিপিইউটির টোটাল পাওয়ার ড্র ১২৫ তাই এর আলাদা ডেডিকেটেড সাপ্লাই অ্যাড করতে হবে অন্যথায় চলবে না। তিনটি ডিসপ্লে পোর্ট এবং একটি এইচডি এম আই পোর্টের অপশন দেওয়া হয়েছে। অভারল এর হিটস্টিং ডিজাইনও অনেক ভাল! এর টপে যে গিগাবাইটের লোগো রয়েছে শুধু তার মধ্যেই আরজিবি রয়েছে। তবে একটা ব্যাপার হচ্ছে গিগাবাইট তাদের ডিজাইন ল্যাঙ্গুয়েজ এখনো চেঞ্জ করেনি। বেঞ্চমারকের জন্য আমি core i5 9400F cpu ব্যাবহার করেছি এবং ১৬ জিবি র‍্যাম সবকিহুই খুব ভাল…

Read more

ফাইনালি AMD তাদের RX 5500 XT লঞ্চ করেছে। যদিও লঞ্চ আজ হয়নি বেশ কিছুদিন আগেই হয়েছিল নরমালি যখন যখন একটি জিপিউ লঞ্চ হয় তখন তার রিটেইল প্রাইস তা থাকে সেটা MSRP থেকে বেশি হয়। কিন্তু দু-এক সপ্তাহ পর এর প্রাইস বেশ স্যাটেল হয়ে যায় কিছুটা কমেও যায়। তো তখন এর যে ভ্যালুর অংশটা থাকে তা অনেকটাই পরিবর্তন হয়ে যায় স্প্যাশেলি বাজেট সেগমেন্টের জিপিউ এর ক্ষেত্রে এমনটা হয়ে থাকে। এবং এদের লাইন আপ দেখলেও মনে হয়না দুই তিন বছরের মধ্যে কোন জিপিইউ লঞ্চ করেছে বলে। AMD এই জিপিউ টির দুটি ভ্যারিয়েন্ট বানিয়েছে একটি ৪জিবি ভ্যারিয়েন্ট এবং একটি ৮জিবি ভ্যারিয়েন্ট। আপনি যদি ৪জিবি ভ্যরিয়েন্ট জিপিইউ টা নিতে চান তাহলে সেখানে বড় পারফমেন্স তেমন পার্থক্য দেখতে পাবেন না কেবল ১/২ এফপিএস এর ডিফ্রেন্স দেখতে পাবেন ৪জিবির ভির‍্যাম ক্রস করতে পারবে এমন খুব কমি গেইমস রয়েছে আজকের ডেট এ। প্রাইসিং এর ভ্যারিয়েন্ট যদি বলি তাহলে ৪জিবি ভ্যারিয়েন্ট আপনি ১৫ হাজারে পাবেন এবং ৮ জিবি…

Read more

পিসিইউটির বিল্ড কোয়ালিটি খুবই সলিড! এর মধ্যে এমন অনেক কিছুই রয়েছে যা খুব বেশি হাইলাইটেড তার মধ্যে যে সবচেয়ে বেশি সেটা হল 80+ ব্রঞ্জ এফিসিয়েন্সি! 80+ ব্রঞ্জ বলতে বোঝায় একটি এফিসিয়েন্সি লেভেল! 80+ ব্রঞ্জ হয় 80+ গোল্ড হয় 80+ প্ল্যাটিনাম হয় এছাড়াও ভিন্ন ভিন্ন লেবেল হয়ে থাকে! এখানে ব্রঞ্জ হচ্ছে একটি সারটিফাইড লেভেল। অর্থাৎ আপনি যদি এটা লোড করে ইউজ করে তাহলে ম্যাক্সিমাম এফিসেন্সি পাবেন 86% এর মানে আপনি যদি এটা ব্যাবহার করেন আপনার পিসিতে এবং পিসি অনেক সময় ধরে ইউজ করেন তাহলে হতে পারে ইলেক্ট্রিসিটির কস্টের ক্ষেত্রে আপনার কিছুটা সেভিংস হতে পারে। শুধু তাই নয়, এফিসেন্সি যখন বেশি তখন হিট এর যে জেনারেশন অর্থাৎ যে হিট জেনারেট হয় তা খুব কম হয়। যার ফলে সিস্টেমের টেম্প্রেচার বিশেষ করে পিএসইউ এর টেম্প্রেচার লো থাকে। যদিও এক্ষেত্রে প্রসেসর এর হিট তেমন প্রভাব পরেনা। তবে ওভারঅল টেম্প্রেচার খুব লো থাকে। ২য় হাইলাটেড ফিচারটি হল এর সাইলেন্ট ফ্যান। অর্থাৎ আপনি যখন পিসি আইডল…

Read more

যদি আপনি আপনার জন্য এমন কোন সিস্টাম বিল্ড করতে চান যেখানে আপনি core i7 9700k বা i9 এর মত প্রসেসর ইউজ করবেন তাহলে ডেফেনেটলি এই মাদারবোর্ডটি আপনার জন্য অনেক ভাল একটি অপশন! ব্যাক্তিগত ভাবে আমি এই মাদারবোর্ডটি নিজের জন্য কিনেছি এবং ইউজও করছি এবং আমি খুবই মুগ্ধ তাই ভাবলাম কেননা আপনাদেরকেও এই মাদারবোর্ড টি সম্পর্কে কিছু তথ্য দেওয়া যাক!! Z390 অরাস মাস্টার কারেন্টলি অরাসের বেস্ট মাদারবোর্ড যা আপনি আজকের ডেটে ক্রয় করতে পারবেন। আর যেহেতু z390 তাই বুঝতেই পারছেন এটা আউট অব দা বক্স 9th জেনারেশনকেও সাপোর্ট করে। তবে আপনি যদি z370 ও ক্রয় করেন তাহলে সেতাও আউট অব দা বক্স 9th gen কে সাপোর্ট করবে। কিন্তু অরাস মাস্টার z390 এর মজাই ব্যাপারটাই আলাদা। যে কারনে আপনি এটা আমার সিস্টেমের জন্য ক্রয় করেছি। এটা ইউজ করছি প্রায় দুই মাস হয়েছে। তাই ভাবলাম কেননা এই এক্সপেরিয়েন্সটি আপনাদের সাথে শেয়ার করা যায়! ডেফেনেটলি এর সাইজ একটু বড়! সকেট এর কথায় যদি যাই…

Read more

এটি একটি ২৭ ইঞ্চির ফুল এইচডি কার্ভ মনিটর যার রিফ্রেশ রেট হচ্ছে ১৬৫ গিগাহারটজ। বক্সটি ওপেন করলেই পাবেন এর ইন্সটলেশন গাইড, সেট আপ গাইড ইত্যাদি ইত্যাদি। ভেতরে একটি বিপি ১.২ ক্যাবল থাকবে একটি এইচডি এম আই ক্যাবল এবং একটি ইউএসবি ক্যাবল এছাড়াও পাবেন এর ভিসা মাউন্ট বেজ। এর মধ্যেও খুব সুন্দর ভাবে স্ক্র সেট করা হয়েছে যার মাধ্যমে আপনি খুব সুন্দরভাবে নিজ হাতেই মাউন্ট করতে পারবেন এবং আপনি এর হাইট অ্যাডজাস্ট করতে পারবেন ১৩০ মিলিমিটার পর্যন্ত। এক হাতেই টিল্ট করা যাবে যা আমার কাছে সবচেয়ে সুন্দর ফিচার মনে হয়েছে এবং ২০ ডিগ্রি পর্যন্ত লেফট রাইট এ মভ করতে পারবেন। যদি এইচডি আর এনাবল করতে চান তাহলে ডেফেনেটলি উইন্ডোস সেটিংস এ গিয়ে এনাবল করতে হবে। ভেতরে ANC (active noise cancellation) ও রয়েছে। পেছনের দিকে আরজিবি লাইট দেওয়া হয়েছেত ঠিকই কিন্তু অরাসের লোগোতে দেওয়া হয়নি লাইট গুলো আরজিবি ফিউশনের মাধ্যমে সিঙ্ক্রোনাইজও করতে পারবেন। মনিটর টি AMD radeon FreeSync2 HDR সাপোর্টেড, জি সিঙ্ক…

Read more

এটি রাইজেন এর নতুন ৩০০০ সিরিজের প্রসেসর কে সাপোর্ট করবে। আপনারা জানেন আমরা অতীতে ইনটেলের B150, B250 এবং B360 ইত্যাদি মাদারবোর্ড দেখেছি যাদের ওপর অভারক্লকিং সম্ভব না কিন্তু B450 এর ওপর অভারক্লকিং সম্ভব। বলে রাখা ভাল, আপনি যদি একটু বেশিই ভয়ানক অভারক্লকিং করতে চান তাহলে আমি আপনাদেরকে রেকম্যান্ড করব x470 সিরিজের দিকে যেতে কারন এগুলো তৈরিই করা হয়েছে এসব কারনে। দ্বিতীয়ত হচ্ছে আপনি চাইলে এই B450 এর ওপর ক্রস ফায়ার করতে পারবেন অর্থাৎ AMD এর দুটি কার্ড লাগাতে পারবেন কিন্তু NVIDIA’র দুটি কার্ড লাগাতে পারবেন না আর দুটি কার্ড লাগায়ই বা কে? একটি কার্ডেই চলে যায়। এখন এটা B350 থেকে B450 হয়েছে তাহলে নিশ্চয়ই এতে বিশেষ কিছু আছে ! যেমন প্রোসেসিং বুস্ট এর যে নতুন ফিচারট রয়েছে তা এর মদ্ধে রয়েছে। নতুন জেনারেশনের যে XFR রয়েছে সেটিও B450 তে পেয়ে যাবেন এবং এর আগের সিরিজের থেকে এটি কম পাওয়ার নেয়। এর চিপসেট টাই অনেক পাওয়ার এফিসিয়েন্ট পিসি ইউজ করছেন বা…

Read more

আপনি যদি আমার পোস্ট এর নিয়মিত পাঠক হয়ে থাকেন তাহলে হয়ত অবশ্যই জানেন যে GeForce 1660 SUPER কে নিয়ে মাত্র কিছুদিন আগেই কথা বলেছিলাম। আর এখন 1650 SUPER ও এসে পরেছে। তো আপনি যদি এমন একজন ব্যাক্তি হয়ে থাকেন যে পেছনের কিছু দিনের মধ্যে 1650 কিনেছিলেন তাহলে আপনার জন্য অনেক অনেক সিপ্যাথি আমার পক্ষ থেকে! তো 1650 super হচ্ছে তাদের এই লাইন আপ এর লেটেস্ট আপডেট এবং এটা বেশ ভালোই পারফমেন্স দিচ্ছে 1080p গেমিং এর জন্য এবং যতজন ব্যাক্তি পেছনের কিছু দিনের মধ্যে 1650 কিনেছিলেন তাদের সাথে তো অবশ্যই খুব বড় ধোকা হয়েছে! তো আপনি যদি একজন 1650 ইউজার হয়ে থাকেন তাহলে আমি আপনাকে রেকমেন্ড করব এই পোস্ট টা আর না পড়ার জন্য আমি চাই না আপনি আর কষ্ট পান!! বুঝতেই পারছেন অবশ্যই! এবং শেষ পর্যন্ত তারাই পোড়তে থাকুন যারা জানতে ইচ্ছুক 1650 super আসলে কেমন পারফমেন্স দেয়, গেমস এ কেমন চলে এবং এই কার্ড টা ক্রয় করা ঠিক হবে…

Read more

মাউসটি তে আরজিবি ফিউশন ২.০ দেওয়া হয়েছে এবং এর অপটিক্যাল সেন্সর ৬,৪০০ । মাউসটির ফিগার টি বেশ সুন্দর। কালার ব্ল্যাক এবং প্রিমিয়াম একটি লুক দেওয়া হয়েছে। ফিচারসঃ রিয়েল 6400 ডিপিআই অপটিক্যাল ইঞ্জিন 20 মিলিয়ন ক্লিক ওমরন স্যুইচ আরজিবি ফিউশন -16. 8 এম কাস্টমাইজ লাইটিং অন-দি-ফ্লাই ডিপিআই অ্যাডজাস্টমেন্ট অ্যান্টি-স্লিপ রাবারের গ্রিপস তাহলে চলুন দেখে নেওয়া যাক এর কিছু স্পেসিফিকেশনঃ • এর ইন্টারফেইস ইউএসবি, • সেন্সিটিভিটি ৫০~৬,৪০০ ডিপিআই সাথে বাড়তি ৫০ডিপিআই রয়েছে। • এর ফ্রেম রেট ১২,৫০০ ফ্রেমস পার সেকেন্ড • স্ট্যান্ডার্ড থ্রীডি স্ক্রোলিং দেওয়া হয়েছে • এর সর্বাধিক গতি 50g • সর্বাধিক ট্রাকিং স্পিড ২০০ ইঞ্চি প্রতি সেকেন্ড • অবশ্যই ডিপিআই সুইচ রয়েছে • লেফট রাইট সুইচ গুলোর লাইফ ২০ মিলিয়ন টাইমস • ওয়েট ১০০ গ্রাম (+-৫%) তার বাদে • সাপোর্ট OS উইন্ডোস (7/8/10)

10/20